গতানুগতিক পেনশন সংক্রান্ত সেবা ছিল কাগুজে। ফলে প্রতিটি পেনশন কেইস সমাধানে দীর্ঘ সময় লাগত। প্রতি মাসের শেষেই, বিভিন্ন অফিসে পেনশনারদের দীর্ঘ অপেক্ষা, বাধর্ক্যজনিত সমস্যায় থাকা বৃদ্ধ সেবাগ্রহীতাদের কষ্ট আরো বাড়িয়ে দিত। যদিও হিসাবরক্ষণ বিভাগের অফিসসমূহ তাদের অন্তহীন প্রচেষ্টা অব্যাহত রেখেছে, কিন্তু পুনঃস্থাপিত পেনশনারগণ যুক্ত হওয়ার সাথে সাথে সরকারি কাজ ও কর্মচারীদের সংখ্যা বৃদ্ধি পাওয়ায়, বর্তমানে প্রতিবছরই পূর্বের তুলনায় আরো বেশি সংখ্যক অবসর প্রাপ্ত কর্মচারী পেনশন সুবিধার আওতায় আসছেন। ফলে সরকারের অবসর প্রাপ্ত সরকারি কর্মচারীদের জন্য একটি স্বতস্ত্র ও কেন্দ্রীয় পেনশন ব্যবস্থা থাকা অত্যন্ত জরুরী হয়ে পড়ে।
অপরদিকে, সরকারি কর্মচারীদের জন্য বিভিন্ন তহবিল সরকার পরিচালনা করে থাকে। এর মধ্যে অন্যতম হলো, সাধারন ভবিষ্য তহবিল (জিপিএফ) । যেখানে সরকারি কর্মচারী তার নিজের বেতন থেকে তহবিলে টাকা জমা রাখেন। এই সমস্ত তহবিলও কেন্দ্রীয় ভাবে ব্যবস্থাপনা অত্যন্ত জরুরী।
চিফ একাউন্টস এন্ড ফিন্যান্স অফিসারের কার্যালয়, (পেনশন ও ফান্ড ম্যানেজমেন্ট) এই গুরুত্বপূর্ন কাজের জন্য নিবেদিত একটি দপ্তর। আর এই কাজকে স্বয়ংক্রিয়, দ্রুত ও বেগবান এবং পেনশন ও তহবিল সংক্রান্ত “স্টেকহোল্ডারদের” সাথে যোগাযোগের সমন্বয় সাধন করতে, যুগোপযোগী ও অত্যাধুনিক একটি ওয়েবসাইট হলোঃ www.cafopfm.gov.bd

সরকারি দপ্তরের সেবাসমূহ কাগজবিহীন পরিবেশে, স্বয়ংক্রিয়ভাবে জনগণকে পৌঁছানো সরকারের “ডিজিটাল বাংলাদেশ” শ্লোগানের সাথে অত্যন্ত সংগতিপূর্ণ। সরকারের “হিসাবরক্ষণ বিভাগ” যেকোনো মূল্যে ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়তে দৃঢ় সংকল্প ব্যক্ত করে। আশা করা যায়, এই ওয়েবসাইটের মাধ্যমে পেনশন ও ফান্ড ম্যানেজমেন্ট সংক্রান্ত যে কোনো সেবা, “সেবা প্রত্যাশীদের” দোরগোড়ায় পৌঁছে দিতে সক্ষম হবে। বর্তমানে ওয়েবসাইটের মাধ্যমে যেসকল সুবিধা পাওয়া যাবে সেগুলো নিম্নরূপ:-
[নোটঃ
    ০১. বর্তমানে iBAS++ থেকে যারা EFT পান, শুধু তারাই এখান থেকে সেবা নিতে পারবেন।
   ০২. এই ওয়েবসাইট পেনশন, জিপিএফ ও অন্যান্য তহবিল ব্যবস্থাপনার সাথে যুক্ত থাকবে। সেবাগ্রহিতাগণ যাতে সহজেই তাদের সেবা প্রদান সংক্রান্ত তথ্য দেখতে পারেন সেজন্য শুধু ১৭-ডিজিট NID বা ১০- ডিজিট Smart ID এবং EFT এর জন্য রেজিষ্ট্রিকৃত ফোন নম্বর দিলেই তথ্য পাওয়া যাবে। ]

০১. পেনশন প্রদান সংক্রান্ত তথ্য: এই ওয়েবসাইট থেকে প্রাপ্ত তথ্য Bank Statement এর মতোই। পেনশনারগণ নিজের তথ্য নিজেই ঘরে বসে জানতে পারবেন। বিশেষত, pensioner তার মাসিক pension পেলেন কিনা?... সেটা নিজেই দেখতে পারবেন, শুধু পেনশনারের ১৭-ডিজিটের NID/ ১০-ডিজিটের Smart ID ও ফোন নম্বর দিয়ে। তাছাড়া পূর্ববর্তী সকল মাসের EFT, অর্থবছর অনুযায়ী দেখতে পারবেন। এসব তথ্যের জন্য হিসাবরক্ষণ অফিস/ব্যাংকে যোগাযোগ করতে হবে না। প্রয়োজনে প্রিন্ট বা সেভ করতে পারবেন।
পেনশন প্রদানের সাথে সংযুক্ত প্রয়োজনীয় তথ্য ছক আকারে থাকবে। যেমন: Token number, Net Amount, Pension Month, Accounting Month, Bill Type, Bill Status, Bill Transmisssion Date, EFT Reference Number, Paypoint and Current Paypoint
এছাড়া পেনশনভোগীর “পেমেন্ট Active নাকি Blocked?” তা জানা যাবে। Blocked থাকলে তার কারণও জানা যাবে। ফলে পেনশনারগণ দ্রুত তার পেনশন প্রাপ্তি পুনরায় চালু করার প্রক্রিয়া শুরু করতে পারবেন। এসব তথ্য পেনশনার যতবার খুশি ততবারই দেখতে পারবেন।

০২. জিপিএফ সংক্রান্ত তথ্য: গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের যেসকল কর্মচারি iBAS++ এর আওতায় আছেন তাদের তথ্য ছক আকারে (ড্যাশ বোর্ড) থাকবে। যেমন: Opening Balance, Subscription, Withdrawal, Refund, Profit, Closing balance. এই মডিউল থেকে তথ্য পেতে বাড়তি নিরাপত্তা হিসেবে OTP যুক্ত করা হয়েছে, যেটা একাউন্টধারীর ফোন নম্বরে প্রেরণ করা হবে। যাতে প্রকৃত সেবাগ্রহিতারা গোপনীয়তা রক্ষা করে নিজের একাউন্টের এই মুহূর্তের অবস্থা জানতে পারেন।

০৩. অভিযোগ প্রতিকার ব্যবস্থা (GRS): এই ওয়েবসাইট এর GRS মডিউলে সেবা গ্রহিতাগণ সরাসরি সিএএফও/পেনশন ও ফান্ড ম্যানেজমেন্ট কার্যালয়ে সরাসরি অভিযোগ দাখিল করতে পারবেন। অভিযোগকারীর অভিযোগ “সমাধানের কোন পর্যায়ে আছে”?, তা এই মডিউলে প্রবেশ করে দেখতে পারবেন। চূড়ান্তভাবে সমস্যা সমাধানের ফিড ব্যাক পাবেন। প্রসঙ্গত, GRS মডিউল ব্যবহার করে যারা অভিযোগ দাখিল করবেন তাদের সমস্যা “বিশেষ অগ্রাধিকার” দিয়ে সমাধান করা হবে।

০৪. Call Centre সুবিধা: হিসাবরক্ষণ অফিসে এই প্রথম Call Centre এর মাধ্যমে আরেকটি ই-সেবা পদ্ধতি চালু হতে যাচ্ছে, যা বর্তমানে প্রক্রিয়াধীন রয়েছে। অচিরেই দেশের সকল পেনশনার ও জিপিএফ একাউন্টধারীগণ এখান থেকে সেবা গ্রহণ করতে পারবেন।

০৫. Help Desk সুবিধা: পেনশনারদের সুবিধার্থে যেকোন সমস্যায় সরাসরি ফোনের মাধ্যমে সহযোগিতা করার জন্য এই ব্যবস্থা চালু করা হয়েছে। শুধু এই কাজের জন্যই ১০টি নম্বর চালু করা হয়েছে। নম্বরগুলো সকাল ০৯:০০ টা থেকে বিকাল ০৫:০০ টা পর্যন্ত (সরকারি ছুটির দিন ব্যতিত) খোলা থাকবে। নম্বরগুলো হলঃ +৮৮০১৩১৩৩৬৩৭৫৩-৬২, +8801313363753-62

বাংলা ইংরেজি
+৮৮০১৩১৩৩৬৩৭৫৩ +8801313363753
+৮৮০১৩১৩৩৬৩৭৫৪ +8801313363754
+৮৮০১৩১৩৩৬৩৭৫৫ +8801313363755
+৮৮০১৩১৩৩৬৩৭৫৬ +8801313363756
+৮৮০১৩১৩৩৬৩৭৫৭ +8801313363757
+৮৮০১৩১৩৩৬৩৭৫৮ +8801313363758
+৮৮০১৩১৩৩৬৩৭৫৯ +8801313363759
+৮৮০১৩১৩৩৬৩৭৬০ +8801313363760
+৮৮০১৩১৩৩৬৩৭৬১ +8801313363761
+৮৮০১৩১৩৩৬৩৭৬২ +8801313363762


০৬. পেনশন সমস্যা সংক্রান্ত আবেদনপত্র: যারা GRS মডিউল ব্যবহার করতে পারছেন না। তাদের জন্য আবেদনের একটি নির্ধারিত ফরম্যাট দেয়া আছে। যার মাধ্যমে পেনশনারগণ সহাজেই তাদের অভিযোগ লিখিত আকারে জানাতে পারবেন। আবেদন পত্রের নির্ধারিত ফরম্যাট দেশের সকল হিসাবরক্ষণ অফিসে পাওয়া যাবে এবং এই কার্যালয়ের ওয়েবসাইট থেকে ডাউনলোড করা যাবে। প্রযোজ্য ক্ষেত্রে প্রয়োজনীয় কাগজপত্র সংযুক্ত করে আবেদন দাখিল করতে হবে। এভাবে পেনশন ও ফান্ড ম্যানেজমেন্ট অফিস সমস্যার ভিত্তিতে দ্রুত ব্যবস্থা নিতে পারবে।

০৭. পেনশন ক্যালকুলেটর: এই ওয়েবসাইটের মাধ্যমে পেনশনার নিজেই মাত্র ০৩টি তথ্য দিয়েই (জন্ম তারিখ, পেনশন শুরুর তারিখ ও পেনশন শুরুর তারিখে নিট পেনশন) নিজের বর্তমান (চলতি মাস) মাসের প্রকৃত প্রাপ্যতা (মাসিক পেনশন) জানতে ও যাচাই করতে পারবেন। ফলে এসব ব্যাপারে পেনশনারকে কষ্ট করে হিসাবরক্ষণ অফিসে যোগাযোগ করতে হবে না। ঘরে বসেই সেবা গ্রহণ করতে পারবেন।

০৮. GPF ক্যালকুলেটর: একটি স্বয়ংসম্পূর্ণ GPF ক্যালকুলেটর সেবা প্রদান এই ওয়েবসাইটের অন্যতম বৈশিষ্ট্য। এখানে একাউন্টধারীগণ তার একাউন্টে এই মুহূর্তে কত জমা আছে? তা জানার পাশাপাশি অগ্রিম ও কিস্তির হিসাবও করতে পারবেন। তাছাড়া নিজেই প্রারম্ভিক জের, সুদ ও কিস্তির হার নির্ধারণ করে ভবিষ্যতের যেকোনো সময়ে তার একাউন্টে কত জমা হবে? তাও হিসাব করে নিতে পারবেন।

০৯. পেনশনারের মৃত্যু সংক্রান্ত তথ্য: এই ওয়েবসাইটের মাধ্যমে পেনশনারের নিকট আত্মীয় পেনশনারের জাতীয় পরিচয় পত্র/স্মার্ট আইডি ও মোবাইল নম্বর দিয়ে সিএএফও/পেনশন ও ফান্ড ম্যানেজমেন্ট কার্যালয়কে দ্রুততার সাথে পেনশনারের মৃত্যু সংক্রান্ত তথ্য দিতে পারবেন। ফলে পেনশনারের মৃত্যু পরবর্তী আর্থিক দেনা-পাওনা সংক্রান্ত জটিলতা দ্রুত সমাধান করে পারিবারিক পেনশন চালু করতে কোন জটিলতায় পড়তে হবে না। এভাবে তথ্য দিলে এই কার্যালয় “বিশেষ অগ্রাধিকার” দিয়ে দ্রুত পেনশন কেইস সমাধান করে সেবাগ্রহিতাদের প্রাপ্য বুঝিয়ে দিতে বদ্ধপরিকর।

১০. পেনশন/জিপিএফ সংক্রান্ত আইনি কাঠামো: পেনশন/জিপিএফ প্রদানের সাথে সংশ্লিষ্ট আইন, বিধি, সরকারি আদেশ/পরিপত্র, বিভিন্ন ফরম সম্পর্কে তথ্য জানা সহ এই সংক্রান্ত বিভিন্ন হালনাগাদ তথ্য এই ওয়েবসাইটের মাধ্যমে জানা যাবে।

১১. পেনশন ও জিপিএফ সংক্রান্ত সকল ফরম: .docx ও PDF ফরম্যাটে পেনশন ও জিপিএফ এর ফরমসমূহ একজায়গায় পাওয়া যাবে। সরাসরি DOWNLOAD করে ব্যবহার করা যাবে। তাছাড়া পেনশনের ধরণ অনুযায়ী, কোন পেনশনারের কি কি ফরম লাগবে? সেটার তালিকা দেয়া হয়েছে। এই ওয়েবসাইট এ দেয়া তালিকার বাইরে আর কোন ফরম লাগবে না।

১২.একটি স্বয়ংসম্পূর্ণ EMPLOYEE DATABASE: সেবাগ্রহীতাগণ যাতে জরুরি বিষয়ে সহজেই এই কার্যালয়ের কর্মচারীদের সাথে সরাসরি যোগাযোগ করতে পারেন সেজন্য সিএএফও/ পেনশন ও ফান্ড ম্যানেজমেন্ট কার্যালয়ের কর্মচারীদের ছবি, পদবি, ফোন নম্বর এবং ইমেইল দেয়া হয়েছে। যেকোনো সরকারি কর্মদিবসে সকাল ০৯০০ থেকে বিকেল ০৫০০ পর্যন্ত ফোন দিতে অনুরোধ করা হল।

১৩. Citizens Charter (সেবাপ্রদান প্রতিশ্রুতি): সিএএফও/ পেনশন ও ফান্ড ম্যানেজমেন্ট কার্যালয়ের প্রায় সকল সেবার একটি তালিকা সেবাপ্রদান প্রতিশ্রুতি হিসেবে ওয়েবসাইটে দেয়া হয়েছে যাতে এই কার্যালয়ের কাজ সম্পর্কে সেবাগ্রহিতাগণ ধারণা লাভ করতে পারেন।







  • ফোন:
    +৮৮০২-৪১০৩০২৯০
    +৮৮০২-৪১০৩০২৯৬

  • হিসাব ভবন (৪র্থ তলা)
    সেগুনবাগিচা, ঢাকা-১০০০
    খোলা (সকাল ০৯.০০-বিকেল ০৫.০০)

© ২০২১ চিফ একাউন্টস এন্ড ফিন্যান্স অফিসারের কার্যালয়, পেনশন ও ফান্ড ম্যানেজমেন্ট, সর্বসত্ত্ব সংরক্ষিত।