Afroza Sultana

জনাব আব্দুর রউফ তালুকদার

অর্থ সচিব
(১লা জুলাই, ২০১৮ থেকে বর্তমান)

জনাব আব্দুর রউফ তালুকদার ২০১৮ সালের ১লা জুলাই থেকে অর্থ সচিবের দায়িত্ব পালন করে আসছেন। তিনি ১৯৬৪ সালে ঢাকায় জন্মগ্রহন করেন।

বাংলাদেশ সিভিল সার্ভিসে ১৯৮৮ সালে (১৯৮৪ ব্যাচ) যোগদানের মাধ্যমে তার কর্মজীবন শুরু করেন।

তিনি তার বর্ণাঢ্য ক্যারিয়ারে সরকারের নানা পদে সাফল্য ও দক্ষতার সাথে কাজ করেছেন। তবে, সরকারি অর্থ ব্যবস্থাপনায় তার দক্ষতার দরুন তাকে বার বার অর্থ বিভাগে ফিরে আসতে হয়েছে। তিনিই একমাত্র সিভিল সার্ভেন্ট যিনি অর্থ বিভাগের সচিব থাকার পূর্বে একই বিভাগের সহকারী সচিব, সিনিয়র সহকারী সচিব, উপসচিব, যুগ্ম সচিব এবং অতিরিক্ত সচিবের দায়িত্ব পালন করেছেন।

অর্থ বিভাগে তিনি বাজেট সম্পর্কিত নানাবিধ সংস্কার এবং সামস্টিক অর্থনৈতিক ব্যবস্থাপনা সংক্রান্ত নানা কাজে গুরুত্বপূর্ণ অবদান রেখেছেন। ২০০৫-০৬ সালে মধ্যমেয়াদি বাজেটারি ফ্রেমওয়ার্ক এবং ২০১৭-২০১৮ সালে নতুন বাজেট ও হিসাব শ্রেনিবিন্যাস পদ্ধতি বাস্তবায়নে অগ্রনণী ভূমিকা পালন করেছেন। সরকারি অর্থ ব্যবস্থাপনার (পিএফএম) সংস্কারসহ এতে তথ্য প্রযুক্তির প্রবর্তনের ক্ষেত্রে তিনি অন্যতম উদ্যোক্তা। ২০০৯ সালে সরকারি অর্থ ও বাজেট ব্যবস্থাপনা আইন প্রণয়নে তার অবদান অনস্বীকার্য। সরকারি কর্মচারীদের জন্য স্বয়ংক্রিয় পেরোল ব্যবস্থা এবং পেনশনারগনের জন্য ইএফটি এর মাধ্যমে পেনশন প্রদানের ক্ষেত্রেও রয়েছে তার অসামান্য অবদান।

অর্থ বিভাগে তিনি বাজেট সম্পর্কিত নানাবিধ সংস্কার এবং সামস্টিক অর্থনৈতিক ব্যবস্থাপনা সংক্রান্ত নানা কাজে গুরুত্বপূর্ণ অবদান রেখেছেন। ২০০৫-০৬ সালে মধ্যমেয়াদি বাজেটারি ফ্রেমওয়ার্ক এবং ২০১৭-২০১৮ সালে নতুন বাজেট ও হিসাব শ্রেনিবিন্যাস পদ্ধতি বাস্তবায়নে অগ্রনণী ভূমিকা পালন করেছেন। সরকারি অর্থ ব্যবস্থাপনার (পিএফএম) সংস্কারসহ এতে তথ্য প্রযুক্তির প্রবর্তনের ক্ষেত্রে তিনি অন্যতম উদ্যোক্তা। ২০০৯ সালে সরকারি অর্থ ও বাজেট ব্যবস্থাপনা আইন প্রণয়নে তার অবদান অনস্বীকার্য। সরকারি কর্মচারীদের জন্য স্বয়ংক্রিয় পেরোল ব্যবস্থা এবং পেনশনারগনের জন্য ইএফটি এর মাধ্যমে পেনশন প্রদানের ক্ষেত্রেও রয়েছে তার অসামান্য অবদান।

অর্থ বিভাগ ছাড়াও তিনি তার দীর্ঘ কর্মজীবনে তথ্য মন্ত্রনালয়, শিল্প মন্ত্রনালয় এবং খাদ্য মন্ত্রনালয় এ দায়িত্ব পালন করেছেন। এর পাশাপাশি তিনি মালয়শিয়ায় অবস্থিত বাংলাদেশি হাইকমিশনে ফার্স্ট সেক্রেটারি (বানিজ্য) হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন।

বার্ষিক উন্নয়ন কর্মসূচীর আওতাধীন প্রকল্পগুলোর রুপরেখা প্রণয়ন এবং এর বাস্তবয়নে রয়েছে তার বিস্তর অভিজ্ঞতা। উপসচিবরত অবস্থায় তিনি এমটিবিএফ বিশেষজ্ঞ হিসেবে আর্থিক ব্যবস্থাপনা সংস্কার প্র্কল্পে (এফএমারপি) কাজ করেছেন। ক্যারিয়ারের শেষদিকে এসে তিনি স্কিলস ফর এমপ্লয়মেন্ট ইনভেস্টমেন্ট প্রকল্পের রুপরেখা প্রণয়ন ও এর বাস্তবায়ন সংক্রান্ত দলের নেতৃত্ব দিয়েছেন। এসইআইপি প্রকল্পের প্রথম নির্বাহী প্রকল্প পরিচালক এবং পরবর্তীতে জাতীয় প্রকল্প পরিচালক হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন।

অর্থসচিব হিসেবে তিনি পদাধিকারবলে বাংলাদেশ ব্যাংকের পরিচালনা পর্ষদের সদস্য, বাংলাদেশ ইনফ্রাসট্র্যাকচার এন্ড ফাইন্যান্স ফান্ড লিমিটেডের চেয়ারম্যান, জাতীয় মানবসম্পদ উন্নয়ন তহবিলের চেয়ারম্যান, সৌদি বাংলাদেশ শিল্প ও কৃষি বিনিযোগ কোম্পানী লিমিটেডের ডেপুটি চেয়ারম্যান, বাংলাদেশ উন্নয়ন গবেষনা প্রতিষ্ঠানের সদস্য; বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইনস লিমিটেডের পরিচালক; ইনফ্রাস্ট্র্যাকচার ডেভেলপমেন্ট কোম্পানীর (ইডকল) পরিচালক; বাংলাদেশ জুডিশিয়াল সার্ভিস কমিশনের সদস্য; বিপিএটিসি, বিআইআইএসএস ও জাতীয় প্রতিরক্ষা কলেজের পরিচালক পর্ষদের সদস্য। জনাব তালুকদার সরকারি অর্থ ব্যবস্থাপনার ও অর্থায়ন এর ওপর যুক্তরাজ্যের বার্মিংহাম বিশ্ববিদ্যালয় হতে মাস্টার্স অব সাইন্স (এম.এস.সি) এবং ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ব্যবসায় প্রশাসন ইনস্টিটিউট হতে এম.বি.এ ডিগ্রি অর্জন করেন। তাছাড়াও সরকারি অর্থ ব্যবস্থাপনার ওপর নানা প্রশিক্ষন প্রোগ্রামে তিনি অংশ গ্রহণ করেন।

জনাব তালুকদার পেশায় শিক্ষিকা মিসেস সেলিমা রওশনের সাথে বিবাহ বন্ধনে আবাদ্ধ এবং তাদের এক কন্যা ও পুত্রসন্তান রয়েছে।




  • ফোন:
    +৮৮০২-৪১০৩০২৯০
    +৮৮০২-৪১০৩০২৯৬

  • হিসাব ভবন (৪র্থ তলা)
    সেগুনবাগিচা, ঢাকা-১০০০
    খোলা (সকাল ০৯.০০-বিকেল ০৫.০০)

© ২০২১ চিফ একাউন্টস এন্ড ফিন্যান্স অফিসারের কার্যালয়, পেনশন ও ফান্ড ম্যানেজমেন্ট, সর্বসত্ত্ব সংরক্ষিত।